mission71

একাত্তরের রণাঙ্গনে পাক বাহিনীর বিরুদ্ধে সম্মুখযোদ্ধা বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. খোরশেদ আলী (৭৮) আর নেই (ইন্না লিল্লাহি … রাজিউন)।

রোববার দিবাগত রাত পৌনে ৩টার দিকে সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার উত্তর বড়দল ইউনিয়নের সীমান্ত গ্রাম চাঁনপুর নিজ বাড়িতে তিনি মৃত্যুবরণ করেন। তিনি ক্যান্সারে আক্রান্ত ছিলেন।

তিনি স্ত্রী, দুই ছেলেসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

তাহিরপুর মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা হাজি রৌজ আলী তার মৃত্যুর খবরটি নিশ্চিত করে বলেন, সহায় সম্পত্তি বিক্রি করে ধার- দেনা করে দীর্ঘদিন বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসার পর গত এক মাস আগে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে খোরশেদ আলীর মরণব্যাধি ক্যান্সার ধরা পড়ে।

উন্নত চিকিৎসার জন্য সরকারের দায়িত্বশীল পর্যায়ে ও প্রশাসনের সঙ্গে করোনা পরিস্থিতির কারণে পরিবারের লোকজন যোগাযোগ করতে পারেননি। তিনি ক্যান্সারে বিনা চিকিৎসায় শয্যাশায়ী থেকে মৃত্যুবরণ করলেন।

উপজেলার সীমান্ত গ্রামের প্রয়াত কৃষক জুবেদ আলীর বড় ছেলে খোরশেদ আলী জাতির জনকের আহ্বানে সাড়া দিয়ে দেশমাতৃকার টানে ১৯৭১ সালে মহান স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করেন।

৫নং সেক্টরের সুনামগঞ্জের তাহিরপুরের তৎকালীন সময়ে টেকেরঘাট ৪নং সাব-সেক্টরের একজন বীরযোদ্ধা হিসেবে পাক বাহিনীর বিরুদ্ধে যুদ্ধকালীন জামালগঞ্জ ও সাচনা এলাকায় একাধিক সম্মুখযুদ্ধে তিনি বীরত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন।