mission71

দেশের রফতানি প্রক্রিয়াকরণ এলাকাগুলোর (ইপিজেড) মধ্যে কুমিল্লা ইপিজেড চতুর্থ বৃহত্তম। এ পর্যন্ত এখানে মোট বিনিয়োগ এসেছে ৪৩৭ মিলিয়ন ডলার। রফতানি হয়েছে ৩ হাজার ৬৯৯ মিলিয়ন ডলার সমমূল্যের পণ্যসামগ্রী। বর্তমানে এ ইপিজেডে দেশী-বিদেশী ও যৌথ মালিকানার ৪৭টি প্রতিষ্ঠান চালু আছে। এসব প্রতিষ্ঠানে কর্মসংস্থান হয়েছে প্রায় ৩৫ হাজার শ্রমিক-কর্মচারীর।

গতকাল দুপুরে কুমিল্লা ইপিজেডের হলরুমে সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানিয়েছেন বাংলাদেশ এক্সপোর্ট প্রসেসিং জোনস অথরিটি (বেপজা) প্রধান কার্যালয়ের মহাব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) নাজমা বিনতে আলমগীর।

তিনি বলেন, কুমিল্লা ইপিজেডে দেশী বিনিয়োগকারী ছাড়াও চীন, জাপান, তাইওয়ান, হংকং, সিঙ্গাপুর, কানাডা, নেদারল্যান্ডস, আয়ারল্যান্ড, যুক্তরাজ্য, তুরস্ক, শ্রীলংকা, পাকিস্তান, দক্ষিণ কোরিয়া ও ইন্দোনেশিয়া বিনিয়োগ করেছে। এখানে গার্মেন্টস অ্যাকসেসরিজ, সোয়েটার, ফ্যাব্রিকস, টেক্সটাইল ডাইজ অ্যান্ড অক্সিলিয়ারিজ, ইলেকট্রনিকস পার্টস, এলিমেনেটিং ব্রাশ, ফুটওয়্যার ও ফুটওয়্যার আপারসের মতো পণ্যসামগ্রী উৎপাদিত হচ্ছে।

সংবাদ সম্মেলনে বেপজা-কুমিল্লার মহাব্যবস্থাপক মো. জিল্লুর রহমানসহ বেপজার বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।