mission71
mission71

মিশন একাত্তর

পৃথিবীর সব চেয়ে বিষাক্ত সাপ ব্লাক মাম্বা ভেসে এলো সমুদ্রে । ব্লাক মাম্বা দেখা গেল দক্ষিণ আফ্রিকার ডারবান সমুদ্রসৈকতে ।দেখার পর চারিদিকে ভয়ঙ্কর আতঙ্ক ছড়িয়েছে ।মনে করা হচ্ছে যে বিষাক্ত সাপ সমুদ্র উপকূলে ভেসে এসেছে সমুদ্রের জোয়ারের পানিতে। কালো মাম্বা এলাপিড পরিবারভুক্ত এক প্রজাতির বিষধর সাপ। এটিকে পৃথিবীর সবচেয়ে বিষাক্ত সাপ বলা হয়। এটি আফ্রিকার সবচেয়ে বিপজ্জনক ও ভয়ঙ্কর সাপ। আফ্রিকার একটি বড় অঞ্চলজুড়ে ভয়ঙ্কর এই সাপের বিস্তৃতি লক্ষ্য করা যায়।কালো মাম্বা দেখা যায় ইথিওপিয়া, কেনিয়া, বতসোয়ানা, উগান্ডা, জাম্বিয়া, জিম্বাবুয়ে, অ্যাঙ্গোলা, নামিবিয়া, মালাউই, মোজাম্বিক, সোয়াজিল্যান্ড, দক্ষিণ আফ্রিকা এবং কঙ্গোতে। ডারবান সৈকতে কীভাবে এটি ভেসে এল সেটাই ভাবাচ্ছে পশুপ্রেমীদের। জোয়ারের জলে এসেছে নাকি এর পিছনে অন্য কারণ তা দেখা হচ্ছে।

গত রবিবার দুপুরে বিষাক্ত কালো মাম্বা সাপ সাঁতার কাটছে ডারবানের অ্যাডিংটন সমুদ্রসৈকতে। ভিডিওটি সোশ্যাল-মিডিয়ায়-ভাইরাল হওয়ার পরে এই বিষয়টি নিয়ে নড়েচড়ে বসেছে দক্ষিণ আফ্রিকার অ্যাসোসিয়েশন অব মেরিন বায়োলজিক্যাল রিসার্চ।এই সংস্থার আধিকারিকরা দ্রুত ঘটনাস্থলে আসে এবং ভয়ঙ্কর সাপটিকে উদ্ধার করে নিয়ে যায়।

এই ঘটনার পর অনেকেই এখন সমুদ্র সৈকতে যেতে ভয় পাচ্ছেন। সংস্থার তরফে খোঁজ চালানো হচ্ছে যে, আর কোনও মাম্বা সাপ সৈকতে ভেসে এসেছে কিনা? দক্ষিণ আফ্রিকার অ্যাসোসিয়েশন অব মেরিন বায়োলজিক্যাল রিসার্চের সংরক্ষণের অন্যতম আধিকারিক ডা. জুডি মান বলেছেন, সাপটির স্বাস্থ্য পরীক্ষার পর বর্তমানে একটি সাধারণ ঘরে রাখা হয়েছে।

ডা জুডি বলেছেন, সাপটি যেহেতু সামুদ্রিক প্রাণী নয়, তাই এটি গভীর সমুদ্রে সাঁতার কাটতে কাটতে বেশ দুর্বল হয়ে গেছে। তাই সাপটি বর্তমানে শরীরে পানি শূন্যতায় ভুগছে। সাপটির পানি শূন্যতা কেটে উঠলে আবার বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ কেন্দ্রে ছেড়ে দেওয়া হবে।