mission71

জমতে শুরু করেছে কাশ্মীরের পর্যটন।

সংঘাত-সহিংসতা পেছনে ফেলে পর্যটকদের আনাগোনা বাড়তে শুরু করেছে ভারতনিয়ন্ত্রিত পৃথিবীর এই ভূস্বর্গে। এতে স্বস্তি ফিরেছে সেখানকার ব্যবসায়ীদের মাঝে। পর্যটকরাও উপভোগ করছেন প্রকৃতির অপার সৌন্দর্য।

 
এখানে নেই কোনো সংঘাত, নেই উত্তাপ। নেই সরকারি বাহিনী ও অস্ত্রধারীদের মধ্যে গোলাগুলি। এখানে আছে শুধু উচ্ছ্বাস আর নির্মল আনন্দ। কেউ পাহাড়ি লেকে ঘুরে বেড়াচ্ছেন নৌকায়। কেউবা অপার্থিব গোলাপ বাগানের মাঝ দিয়ে হেঁটে হেঁটে উপভোগ করছেন প্রকৃতির অপার সৌন্দর্য।
 
ভারতনিয়ন্ত্রিত জম্মু-কাশ্মীরের কথা বলছি, বলছি শ্রীনগরের সুন্দর একটি অংশের কথা। একেই বলা হয় পৃথিবীর ভূস্বর্গ। এখানকার প্রাকৃতিক সৌন্দর্য মুগ্ধ করে রাখে পর্যটকদের।

 
গত দেড় বছর ধরে করোনার কারণে অনেকটাই ফিকে হয়ে পড়েছিল কাশ্মীরের পর্যটনশিল্প। ভেঙে পড়েছিল পর্যটন ব্যবসা। তবে সুখবর হচ্ছে, করোনা সংক্রমণ কমে আসায় আবারও চাঙা হতে শুরু করেছে জম্মু-কাশ্মীরের পর্যটন খাত। 
 
 

বিভিন্ন পর্যটন কেন্দ্রে আবারও বাড়ছে পর্যটকদের আনাগোনা। এতে স্বস্তি ফিরেছে ব্যবসায়ীদের মাঝে। মানুষও যেন ফিরে পেয়েছে প্রাণ। এত দিন পর একটু প্রাণভরে নিশ্বাস নিতে পারছেন দর্শনার্থীরা।
 
একজন বলেন, ১০ ১২ দিন ধরে এখানে পর্যটক বাড়ছে। আশা করছি সামনে আরও পর্যটনশিল্প চাঙা হবে।
আরেকজন এত দিন পর ঘুরতে পেরে খুব ভালো লাগছে। নিজেকে খুব হালকা লাগছে।
বরাবরই জম্মু-কাশ্মীরের পাহাড় আর লেক দর্শনার্থীদের পছন্দের তালিকার শীর্ষে থাকে। পর্যটন ব্যবসায়ীরা বলছেন, পর্যটক বাড়তে থাকায় আবারও লাভের আশায় বুক বাঁধছেন তারা।