mission71

বেলারুশ থেকে অবৈধ অনুপ্রবেশকারী পোল্যান্ডে প্রবেশ করছে। এই অভিযোগ তুলে বেলারুশ সীমান্তে নিরাপত্তা বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে পোল্যান্ড।

গত কয়েকদিন ধরেই উত্তপ্ত বেলারুশ-পোল্যান্ড সীমান্ত। আফগানিস্তান থেকে আসা একদল শরণার্থীকে ‘পুশব্যাক’ করে বেলারুশে পাঠিয়ে দিয়েছিল পোল্যান্ডের সেনাবাহিনী। বেলারুশও ফের তাদের পোল্যান্ডে পাঠানোর চেষ্টা করে।

সেই ঘটনার পর মঙ্গলবার পোল্যান্ডের প্রতিরক্ষামন্ত্রী টুইট করে জানিয়ে দিয়েছেন, বেলারুশ সীমান্তে ছয় হাজার নতুন সেনা মোতায়েন করা হচ্ছে। সীমান্তরক্ষা বাহিনীর সঙ্গে হাত মিলিয়ে তারা কাজ করবে। বেলারুশ থেকে কোনোভাবেই শরণার্থীদের অবৈধভাবে পোল্যান্ডে ঢুকতে দেওয়া হবে না।
শরণার্থী নিয়ে গত কিছুদিন ধরে রীতিমতো উত্তপ্ত পোল্যান্ড। পার্লামেন্টে শরণার্থীদের ফিরিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। যার জেরে ওয়ারশয়ের রাস্তায় ব্যাপক আন্দোলন করেছেন শরণার্থীদের পক্ষে কাজ করা একাধিক মানবাধিকার সংগঠন। কিন্তু বেলারুশ থেকে শরণার্থী প্রবেশ নিয়ে আন্তর্জাতিক মঞ্চেও সরব পোল্যান্ড।

তাদের অভিযোগ, রাশিয়া এবং বেলারুশ ইচ্ছে করে পোল্যান্ডে শরণার্থী ঢোকানোর চক্রান্ত চালাচ্ছে। মূলত মধ্যপ্রাচ্য থেকে ওই শরণার্থীরা পোল্যান্ডে ঢুকছে। বেলারুশের উপর ইউরোপীয় ইউনিয়ন একাধিক নিষেধাজ্ঞা জারি রেখেছে। তার প্রতিশোধ নিতে বেলারুশ এ কাজ করছে বলে পোল্যান্ডের অভিযোগ।

পোল্যান্ডের প্রতিরক্ষামন্ত্রীর দাবি, শুধুমাত্র সোমবার ৬১২ বার সীমান্ত পার করে বেলারুশ থেকে পোল্যান্ডে ঢোকার চেষ্টা করেছেন শরণার্থীরা। যারা অধিকাংশই ইরাকের বাসিন্দা। আর এই মাসে নয় হাজার ৬০০ বার সীমান্ত পার করার চেষ্টা চলেছে।

পোল্যান্ড স্পষ্টভাবে জানিয়ে দিয়েছে, বিশেষত, বেলারুশের সীমান্ত পার করে কেউ পোল্যান্ডে ঢোকার চেষ্টা করলে তাদের বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা করা হবে। ইরাকের বেশ কিছু নাগরিককে মঙ্গলবার ফৌজদারি মামলায় গ্রেফতারও করা হয়েছে। ছয় হাজার সেনা প্রয়োজনে গুলিও চালাতে পারে বলে প্রশাসনের তরফে জানানো হয়েছে।

এদিকে, জার্মানিও পোল্যান্ডের দিকে হাত বাড়িয়ে দিয়েছে। জার্মানি জানিয়েছে, তাদের সঙ্গে পোল্যান্ডের সীমান্তও সুরক্ষিত রাখা হবে। এবং সে কারণে পোল্যান্ডের সঙ্গে যৌথভাবে প্রহরার আহ্বান জানানো হয়েছে। জার্মান স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় পোল্যান্ডের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে এ বিষয়ে একটি চিঠিও দিয়েছে। জার্মানি জানিয়েছে, পোল্যান্ডের সমস্যা তারা বুঝতে পারছে এবং সে কারণেই সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।

এ বছরের মাঝামাঝি সময় থেকে মধ্যপ্রাচ্য থেকে রাশিয়া হয়ে বেলারুশ ঢুকে পোল্যান্ড, লিথুয়ানিয়া-সহ একাধিক দেশে ঢোকার নতুন রাস্তা তৈরি করেছেন শরণার্থীরা। অভিযোগ, বেলারুশ এ কাজে শরণার্থীদের মদত দিচ্ছে। যদিও বেলারুশ অভিযোগ অস্বীকার করেছে।

সূত্র: ডয়েচে ভেলে।