mission71
mission71

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সাথে চুক্তিবদ্ধ আওয়ামী লীগ নেতার রিজেন্ট হাসপাতালে করোনার সঠিক পরীক্ষা না করে হাজার হাজার মানুষদের দেওয়া হয়েছে করোনার পরীক্ষার ভুয়া রিপোর্ট। এতে কতো মানুষের জীবন নিয়ে সর্বনাশা খেলা করা হয়েছে, তা বলে শেষ করা যাবে না।

মঙ্গলবার (৭ জুলাই) নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয কার্যালয়ে এক অনলাইন সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

দুর্নীতি ও লুটপাটই হচ্ছে ওবায়দুল কাদের সাহেবদের কাছে পূর্ণিমার আলো বলে মন্তব্য করে রিজভী বলেন, তাদের ব্যর্থতার সমালোচনা শুনলেই সেটিকে তারা অন্ধকার বলে মনে করছে। ওবায়দুল কাদের সাহেবরা ছাদের নিচে ঘরের ভেতরে বসে ভার্চুয়াল বক্তব্য রাখছেন তাতে তো আসলে পূর্ণিমার চাঁদ না দেখারই কথা। কিন্তু দেশজুড়ে যে মানুষের মনে অমাবস্যার ঘন অন্ধকার বিরাজ করছে সেটা তিনি টের পাচ্ছেন না।

তিনি বলেন, করোনাসহ কোনো রোগেরই চিকিৎসা পাচ্ছে না মানুষ। করোনার টেস্ট না করে দেওয়া হচ্ছে রিপোর্ট। বিনা চিকিৎসায় পথে ঘাটে মারা যাচ্ছে মানুষ। কবরস্থানে মরদেহের দাফনের জায়গা নেই। এখনো সরকারি হাসপাতালের চিকিৎসায় ১০০ টাকার মধ্যে ব্যক্তির পকেট থেকে ব্যয় হয় ৬৬ টাকা। আর বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা করাতে গেলে তো ঘটি-বাটি, সহায়-সম্পদ সব খোয়াতে হয়। সরকার চিকিৎসার মতো মানুষের একটি মৌলিক অধিকারকে অগ্রাহ্য করে মেগা প্রজেক্ট নিয়েই ব্যস্ত আছে।

তিনি আরও বলেন, এবারের কাল্পনিক বাজেটেও সরকারের টার্গেট হচ্ছে ব্যাংক থেকে ব্যাপক পরিমাণে ঋণ নেওয়া। এই ঋণ জনকল্যাণের কাজে ব্যবহৃত হবে না, এই ঋণ মেগা প্রজেক্টের নামে লুটপাটেই শেষ হয়ে যাবে। আকণ্ঠ দুর্নীতিতে নিমজ্জিত সকল সেক্টর। প্রতিদিন এসব খবর গণমাধ্যমে প্রকাশ হচ্ছে। দুর্নীতি ও লুটপাটই হচ্ছে ওবায়দুল কাদের সাহেবদের কাছে পূর্ণিমার আলো। তাই তাদের ব্যর্থতার সমালোচনা শুনলেই সেটিকে তারা অন্ধকার বলে মনে করছে।

মানুষের জীবন মরণের প্রশ্নটি সরকারের কাছে কোনো মূল্য নেই। যারা জনগণের ক্ষমতা কেড়ে নিয়ে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতা দখল করে তারা জনগণের মৌলিক চাহিদাগুলোকে কখনোই আমলে নিবে না। অভাবের তাড়নায় লাইন ধরে ঢাকা ছাড়ছে মানুষ, ধার-দেনা করে কোনো রকমে জীবনযাপন করছে মধ্যবিত্ত ও নিন্মমধ্যবিত্তের মানুষরা। ব্যাংকগুলো লুট করে খালি করে দেওয়া হয়েছে।