mission71

গাজীপুর থেকে ঢাকা পর্যন্ত রাস্তার খানাখন্দ ও ভাঙাচোরা মেরামতের দাবিতে ময়মনসিংহ বিভাগের সব জেলার দূরপাল্লার বাস ও পণ্য পরিবহনকারী যানবাহন অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

পূর্বঘোষিত ধর্মঘট অনুযায়ী আগামীকাল রোববার (১৬ জানুয়ারি) ভোর ৬টা থেকে ময়মনসিংহ, নেত্রকোনা, জামালপুর ও শেরপুর থেকে ঢাকাগামী সব ধরনের পরিবহন বন্ধ থাকবে।

শনিবার (১৫ জানুয়ারি) ময়মনসিংহ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সিনিয়র সহ-সভাপতি শংকর সাহা বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

তিনি বলেন, গাজীপুরের সালনা থেকে টঙ্গী পর্যন্ত রাস্তার কাজ কাজ শেষ না হওয়া পর্যন্ত পরিবহন ধর্মঘট চলবে। তবে ময়মনসিংহ, নেত্রকোনা, জামালপুর ও শেরপুরের আঞ্চলিক সড়কে সব ধরনের পরিবহন চালু থাকবে।

এরআগে গত ২ জানুয়ারি এক সংবাদ সম্মেলনে ময়মনসিংহ জেলা মোটর মালিক সমিতি ও ময়মনসিংহ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি এ ঘোষণা দেয়, আগামী ১৫ জানুয়ারির মধ্যে মহাসড়কের গাজীপুর-টঙ্গী অংশের খানাখন্দ মেরামত করে রাস্তায় যান চলাচল উপযোগী করা না হলে ময়মনসিংহ বিভাগের সব জেলার পরিবহন চলাচল বন্ধ রাখা হবে।

 

ময়মনসিংহ চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি আমিনুল হক শামীম জানান, মহাসড়কে খানাখন্দ ও যানজটের কারণে প্রতিদিন পরিবহন মালিকদের কোটি টাকার বাড়তি জ্বালানি তেল খরচ হচ্ছে। দীর্ঘদিন ধরে এ অবস্থা চলতে থাকায় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবহন মালিক পক্ষ মহাসড়কে যান চলাচল বন্ধ করতে বাধ্য হচ্ছে।

লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, চার লেনের সড়ক হওয়ায় ময়মনসিংহ থেকে গাজীপুর যাতায়াতে প্রায় এক ঘণ্টা সময় লাগলেও গাজীপুর থেকে টঙ্গী পর্যন্ত প্রায় দুই ঘণ্টা থেকে তিন ঘণ্টাও লেগে যায়। এতে মানুষের ভোগান্তি যেমন হয়, তেমনি পরিবহন খরচ অনেক বেড়ে যায়।

এ ছাড়া ময়মনসিংহ থেকে ঢাকায় বিভিন্ন শিল্পপ্রতিষ্ঠানের কাঁচামাল পরিবহন করার ক্ষেত্রে ব্যাপক সমস্যায় পড়তে হচ্ছে শিল্পপ্রতিষ্ঠান মালিকদের। এর ফলে দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি এবং যানজটের কারণে মানুষের ব্যাপক দুর্ভোগের শিকার হতে হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন ব্যবসায়ী সংগঠনের নেতারা।