mission71

উত্তর আমেরিকার দেশ মেক্সিকোর কারাবন্দি মাদক সম্রাট এল চাপো গুজম্যানের স্ত্রী এমা করোনেল এইসপুরোকে মাদক পাচারের সন্দেহে যুক্তরাষ্ট্র থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। মঙ্গলবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) যুক্তরাষ্ট্রের জাস্টিস ডিপার্টমেন্ট বিবৃতির মাধ্যমে তথ্যটি জানিয়েছে।

জাস্টিস ডিপার্টমেন্ট জানায়, ওয়াশিংটন ডিসির বাইরে ডুলেস আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ৩১ বছর বয়সী এমা করোনেলকে আটক করা হয়। তার বিরুদ্ধে কোকেন, মেথাফেটামাইন, হেরোইন ও গাঁজা বিতরণের অপরাধে অংশ নেওয়ার অভিযোগ আনা হয়েছে।

গুজম্যান বর্তমানে মাদক ও অর্থ পাচারের দায়ে নিউইয়র্কে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ভোগ করছেন। ৬৩ বছর বয়সী গুজম্যান ছিলেন মেক্সিকোর ‘সিনালোয়া কার্টেল’ এর সাবেক প্রধান। কর্মকর্তাদের তথ্য মতে, যুক্তরাষ্ট্রে সবচেয়ে বড় মাদক পাচারকারী ছিল এই সংঘটি।

২০১৯ সালে গুজম্যানের বিচারের সময় তার জীবনের রোমহর্ষক কাহিনী বেরিয়ে আসে। ১৩ বছর বয়স থেকেই ধর্ষণ এবং সাবেক কার্টেল সদস্য ও প্রতিযোগীদের ঠাণ্ডা মাথায় হত্যা করা শুরু করেন তিনি।

মঙ্গলবার ওয়াশিংটন ডিসির ফেডারেল আদালতে ভিডিয়ো কনফারেন্সের মাধ্যমে এমা করোনেলকে হাজির করা হবে বলে জানায় জাস্টিস ডিপার্টমেন্ট।

মাদক পাচারের অভিযোগ ছাড়াও এমা করোনেলের বিরুদ্ধে ২০১৫ সালে মেক্সিকোর কারাগার থেকে তার স্বামী এল চাপো গুজম্যানকে পালাতে সহায়তা করার অভিযোগ রয়েছে।

মেক্সিকোর সর্বাধিক সুরক্ষার কারাগার আলতিপ্লানো থেকে গুজম্যান পালিয়ে গিয়েছিলেন। তার ছেলে কারাগারের পাশে একটি জায়গা কিনেছিল এবং কারাগার থেকে চুরি করা একটি জিপিএস ঘড়ির মাধ্যমে টানেল খননকারীরা গুজম্যানের প্রকৃত অবস্থান নিশ্চিত করে।

বিশেষভাবে তৈরি একটি মোটরসাইকেলে করে টানেলের মাধ্যমে কারাগার থেকে পালিয়ে যান গুজম্যান।

আদালতের নথি থেকে জানা যায়, ২০১৭ সালে যুক্তরাষ্ট্রে গুজম্যানকে হস্তান্তরের আগে তার আরেকটি পলায়নের পরিকল্পনায় সম্পৃক্ত ছিলেন এমা করোনেল। তবে এ অভিযোগের বিষয়ে করোনেলের কাছ থেকে কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি।

সূত্র : বিবিসি, দ্য গার্ডিয়ান