mission71

চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলায় উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক কমিটি ও সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
১৮ সেপ্টেম্বর দুপুরে মতলব উত্তর উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক কমিটি ও সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক এর নিজ বাড়ি বাগানবাড়িতে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
বক্তব্য রাখেন – চাঁদপুর জেলা আওয়ামী লীগের- সহ সভাপতি ও মতলব উত্তর উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মনজুর আহমেদ, জেলা আওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক ও মতলব উত্তর উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক দায়িত্ব প্রাপ্ত নেতা এ্যাড. রুহুল আমিন সরকার।

মতলব উত্তর উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক কমিটি ও সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক ও চাঁদপুর জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের সাবেক কমান্ডার মিয়া মো. জাহাঙ্গীরের সভাপতিত্বে ও সদস্য সচিব ও জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম হাওলাদারের পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন -উপজেলার আওয়ামী লীগের আহবায়ক ও সন্মেলন প্রস্তুতি কমিটির সদস ও মোহনপুর ইউপি চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা সামসুল হক চৌধুরী,
সদস্য ও জহিরাবাদ ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি গাজী মুক্তার হোসেন, বাগানবাড়ি ইউপি চেয়ারম্যান যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা নান্নু মিয়া, সদস্য ও ফতেপুর পূর্ব ইউপি চেয়ারম্যান আজমল হোসেন চৌধুরী, সদস্য ও ষাটনল ইউপি চেয়ারম্যান একেএম শরীফ উল্লাহ সরকার, সদস্য ও সুলতানাবাদ ইউপি চেয়ারম্যান এ্যাড. হাবিবা আক্তার সিফাত, সদস্য গাজী ইলিয়াছুর রহমান, মিয়া আশাদুজ্জামান, সদস্য ছেংগারচর পৌর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সরকার আবুল কালাম আজাদ, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহসভাপতি আলমামুদ টিটু, সদস্য ও জেলা ছাত্রলীগের সহসভাপতি এ্যাড. সেলিম মিয়া, আাশাদুজ্জামান।

এসময় উপস্থিত ছিলেন – আওয়ামী লীগ নেতা ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আল-আমিন মিয়া, কলাকান্দা ইউপি চেয়ারম্যান সোবহান সরকার সুভাসহ অন্যান্য নেতা কর্মীরা।

সভা শেষে প্রেস বিফ্রিং এ জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি মনজুর আহমদ বলেছেন, আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থীরা যেন বিজয়ী হতে পারে—সে লক্ষ্যে সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। সবাইকে দলের শৃঙ্খলা মেনে চলতে হবে। যাঁরা আওয়ামী লীগ করেও নৌকার প্রার্থীদের হারানোর চেষ্টায় বিদ্রোহী প্রার্থী হবেন, তাঁদের বিরুদ্ধে কঠোর সাংগঠনিক ও শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
তিনি আরো বলেন, অসৎ, সুযোগসন্ধানী ও সুদিনের মৌমাছির মতো যাঁরা দলে ভিড়েছেন, তাঁদের কোনোভাবেই কমিটিতে স্থান দেওয়া হবে না বলে জানান। কমিটিতে তৃণমূলের পরীক্ষিত, নিবেদিত ও দুঃসময়ে যাঁরা পাশে ছিলেন, তাঁদেরই জায়গা দেওয়া হবে। একই সঙ্গে উপজেলার ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড সম্মেলন এবং কমিটি গঠনের কার্যক্রম দ্রুত করা হবে বলে জানান তিনি।