mission71

সারাদেশে যারা প্রথম ডোজের টিকা নিয়েছে তাদের জন্য দ্বিতীয় ডোজ সংরক্ষণ করা হচ্ছে। পূর্বের অভিজ্ঞতার আলোকে আমরা দেখেছি যেসব টিকা একেবারে দিয়ে দেওয়ায় দ্বিতীয় ডোজের কোনো টিকা ছিল না। এতে করে দ্বিতীয় ডোজ পেতে অনেক দেরি হয়েছে।

শুক্রবার কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন ক্যাম্পেইন ২০২১ উদ্বোধন অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেওয়ার সময় এসব কথা বলেন স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক এবিএম খুরশিদ আলম।

তিনি আরও বলেন, এই ক্যাম্পেইনের মাধ্যমে ৬ দিনে ৩২ লাখ মানুষকে টিকার আওতায় আনা হবে। এছাড়া ভোটার আইডি কার্ড জটিলতার কারণে ১৮ বছর উত্তীর্ণদের টিকা দেওয়ার যে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিলো সেটি থেকে সরে আসা হয়েছে। তবে পঁচিশ বছর থেকে বেশি যাদের বয়স তাদের টিকা দেওয়া হবে। পঞ্চাশের বেশি বয়স্ক নারী, শারীরিক প্রতিবন্ধী ও দূর্গম আর প্রত্যন্ত অঞ্চলের জনগোষ্ঠীদের অগ্রাধিকার দেওয়া হবে টিকা দেওয়ার ক্ষেত্রে।

তিনি জানান, এই ক্যাম্পেইনে সারাদেশে ৪৬টি ইউনিয়নে ১০৫৪টি পৌরসভা এবং সিটি করপোরেশন এলাকার ৪৩৩টি ওয়ার্ডে ৩২৭০৬ জন টিকাদানকারী এবং ৪৮৪৫৯ জন স্বেচ্ছাসেবীর মাধ্যমে একযোগে কোভিড-১৯ টিকা দেওয়া হবে।