mission71

জ্বালানি তেলের সরবরাহের সীমাবদ্ধতা এবং রাশিয়ার প্রতিবেশী দেশ ইউক্রেনে আক্রমণের উদ্বেগ মধ্যে দিয়ে শুক্রবার (১৪ জানুয়ারি) আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের দাম আবারও বেড়েছে। সূত্র বলছে, চীন চন্দ্র নববর্ষকে ঘিরে অপরিশোধিত তেল রিজার্ভ থেকে তেল বাজারে ছাড়বে, তা সত্ত্বেও এ সপ্তাহের চতুর্থ বারের মতো অপরিশোধিত তেলের দাম বেড়েছে।

আন্তর্জাতিক বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রকাশিত প্রতিবেদন সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

ব্রেন্ট ক্রুডের দাম ১ দশমিক ৫৯ ডলার বা ১ দশমিক ৯ শতাংশ বেড়ে বিগত দুই মাসের সর্বোচ্চ ব্যারেল প্রতি ৮৬ দশমিক শূন্য ৬ ডলারে উঠে এসেছে। এ সপ্তাহে অপরিশোধিত তেলের দাম ৫ দশমিক ৪ শতাংশ বেড়েছে।

এ দিকে ইউএস ওয়েস্ট টেক্সাস ইন্টারমিডিয়েট (ডব্লিউটিআই) অপরিশোধিত তেলের দাম ১ দশমিক ৭০ ডলার বা ২ দশমিক ১ শতাংশ বেড়ে ব্যারেল প্রতি ৮৩ দশমিক ৮২ ডলারে স্থির হয়েছে। এ সপ্তাহের জ্বালানিটির দর ৬ দশমিক ৩ শতাংশ বেড়েছে।

গত অক্টোবরের শেষের পর প্রথমবারের মতো অপরিশোধিত তেলের দর সর্বোচ্চ অবস্থানে রয়েছে।
প্রাইস ফিউচার গ্রুপের সিনিয়র বিশ্লেষক ফিল ফ্লিন বলেছেন, মানুষ এখন বুঝতে পারছে বিশ্বব্যাপী সরবরাহের বিপরীতে চাহিদার পরিস্থিতি বেশ সংকটপূর্ণ। এটি বাজারে তেলের দাম আরও বাড়াতে প্রভাবিত করছে।

তিনি আরও জানিয়েছেন, রাশিয়া ও ইউক্রেনের মধ্যে উত্তেজনা তৈরি হওয়ায় এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সাপ্তাহিক ছুটি মার্টিন লুথার কিং জুনিয়র দিবসের ছুটির কারণে ব্যবসায়ীরা কম ট্রেডিং ভলিউম দেখার আশঙ্কায় সরবরাহ কমিয়ে দিয়েছে।

 

নিউইয়র্কের অ্যাগেইন ক্যাপিটাল ম্যানেজমেন্টের অংশীদার জন কিল্ডফ বলেছেন, ভূ-রাজনৈতিক ঝুঁকির কারণে তেলের দাম বাড়ছে।

এদিকে বেশ কয়েকটি ব্যাংক পূর্বাভাস দিয়েছে যে, এ বছর অপরিশোধিত তেলের দাম ব্যারেল প্রতি ১০০ ডলার হবে।