mission71

২০৩০ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে আঞ্চলিক অটোমোবাইল শিল্প উৎপাদনের কেন্দ্রে উন্নীতের পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। এ লক্ষ্য অর্জনে সরকার অটোমোবাইল শিল্প উন্নয়নে সর্বাধিক গুরুত্ব দিচ্ছে। গতকাল ঢাকার ধামরাইয়ে ইফাদ অটোস ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্কে আয়োজিত ইফাদ অটোস লিমিটেডের পক্ষ থেকে বিশ্বমানের এয়ার কন্ডিশন বাস ও কমার্শিয়াল বাসের বডি এবং ট্রাকের কেবিন তৈরির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন। এজন্য তিনি সরকারের পাশাপাশি অটোমোবাইল শিল্প উদ্যোক্তাদেরও এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।

ইফাদ গ্রুপের চেয়ারম্যান ইফতেখার আহমেদ টিপুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. এনামুর রহমান, সংসদ সদস্য আলহাজ বেনজির আহমেদ এবং বাংলাদেশ ট্রেড অ্যান্ড ট্যারিফ কমিশনের চেয়ারম্যান মুনশী শাহাবুদ্দীন আহমেদ অনুষ্ঠানে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে শিল্পমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ অটোমোবাইল শিল্পে স্থানীয় চাহিদা সৃষ্টির পাশাপাশি দেশজ উৎপাদিত অটোমোবাইল পণ্যসামগ্রীর রফতানি সক্ষমতা বৃদ্ধি পাচ্ছে। ২০৩০ সালে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জন ও ২০৪১ সালের উন্নত আয়ের বাংলাদেশ বিনির্মাণে অটোমোবাইল শিল্প খাত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলেও আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

ইফাদ অটোস সম্পর্কে শিল্পমন্ত্রী বলেন, প্রায় তিন যুগ ধরে ইফাদ অটোস লিমিটেড দেশের পরিবহন খাতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে আসছে। গুণগতমানের কারণে ইফাদ গ্রুপের ইফাদ মাল্টি প্রডাক্টসের পণ্য বিশ্বের ৩২টি দেশে রফতানি হচ্ছে। ভালোমানের পণ্য বাজারজাত করায় প্রতিষ্ঠার পর থেকে ইফাদ গ্রুপ সাধারণ মানুষের আস্থা ও বিশ্বাস অর্জনে সমর্থ হয়েছে।

উল্লেখ্য, বছরে এক হাজার এসি নন-এসি লাক্সারি বাসের বডি তৈরির লক্ষ্য নিয়ে উৎপাদন কার্যক্রম শুরু করেছে ইফাদ অটোস লিমিটেড। বছরে ১২ হাজার গাড়ি সংযোজনের লক্ষ্য নিয়ে ২০১৭ সালে ইফাদ অটোস লিমিটেডের সংযোজন কারখানা চালু হয়। কারখানাটিতে ভারতের অশোক লেল্যান্ড ব্র্যান্ডের বিভিন্ন মডেলের গাড়ি তৈরি হচ্ছে।