mission71

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান তার জীবনে ৪৬৮২ দিন কারাভোগ করেছেন। ব্রিটিশ আমলে স্কুলজীবন থেকে শুরু হয়েছে তারা কারাবরণ। এসময় বঙ্গবন্ধু ৭ দিন কারা ভোগ করেন। বাকি ৪৬৭৫ দিন কারা ভোগ করেছেন পাকিস্তান সরকারের আমলে। ৫৪ বছরের জীবনের প্রায় এক-চতুর্থাংশ সময় কারাগারেই কাটাতে হয়েছিল বঙ্গবন্ধুকে। পাকিস্তানের ২৩ বছরের শাসনকালে বঙ্গবন্ধু ১৮ বার জেলে গেছেন এবং মৃত্যুর মুখোমুখি হয়েছেন দুবার।

বঙ্গবন্ধুর ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’তে ১৯৫৫ সাল পর্যন্ত ঘটনাপঞ্জি বর্ণনা করেছেন। ১৯৬৬-৬৯ সালে কারাগারে থাকাকালে তিনি তার এই ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ রচনা করেন।

স্কুলের ছাত্র অবস্থায় ১৯৩৮ সালে প্রথমবার কারাগারে যান তিনি। ব্রিটিশ আমলে, ওই সময় ৭ দিন কারাগারে ছিলেন।

এরপর পাকিস্তান সৃষ্টির পর, ১৯৪৮ সালের ১১ মার্চ থেকে ১৫ মার্চ পর্যন্ত তিনি ৫ দিন কারাভোগ করেন। একই বছর ১১ সেপ্টেম্বর কারাগারে গিয়ে তিনি মুক্তি পান ১৯৪৯ সালের ২১ জানুয়ারি। এ দফায় তিনি ১৩২ দিন কারাভোগ করেন।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৪৯ সালের ১৯ এপ্রিল আবারও কারাগারে গিয়ে ৮০ দিন কারাভোগ করে মুক্তি পান ওই বছরের ২৮ জুন। ওই বছরের সেপ্টেম্বরে তিনি আবারও ২৭ দিন কারাগারে ছিলেন।

বিশ্বমঞ্চে বাংলাদেশের আগমনী বার্তা: বঙ্গবন্ধুর দূরদৃষ্টি ও মুক্তির পথে চূড়ান্ত যাত্রা  

১৯৪৯ সালের ২৫ অক্টোবর থেকে ২৭ ডিসেম্বর পর্যন্ত ৬৩ দিন বিভিন্ন কারাগারে ছিলেন বঙ্গবন্ধু। ১৯৫০ সালের ১ জানুয়ারি থেকে ১৯৫২ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি টানা ৭৮৭ দিন বঙ্গবন্ধু কারা ভোগ করেন। এরপর ১৯৫৪ সালের নির্বাচনে জয়লাভের পরও বঙ্গবন্ধুকে কারাগারে যেতে হয়। এই দফায় বঙ্গবন্ধু ২০৬ দিন কারা ভোগ করেছেন।

১৯৫৮ সালে আইয়ুব খান মার্শাল ল’ জারির পর বঙ্গবন্ধু ১১ অক্টোবর গ্রেফতার হন। এই সময়ে একটানা ১১৫৩ দিন তাকে কারাগারে আটকে রাখা হয়। এই দফায় ৩ বছরের বেশি কারাগারে কাটান বঙ্গবন্ধু।

১৯৬২ সালের ৬ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধু আবারও গ্রেফতার হন এবং ১৮ জুন মুক্তি পান। এই দফায় তিনি কারাভোগ করেন ১৫৮ দিন। এরপর ১৯৬৪ ও ৬৫ সালে বিভিন্ন মেয়াদে তিনি ৬৬৫ দিন কারাগারে ছিলেন।

মুক্তির সনদ ৬ দফা দেওয়ার পর বঙ্গবন্ধু বিভিন্ন স্থানে সমাবেশ করতে গেলে পাকিস্তান সরকার তাকে গ্রেফতার করে। ৩২টি জনসভা করে বিভিন্ন মেয়াদে তিনি ৯০ দিন কারাভোগ করেন তিনি।

এরপর ১৯৬৬ সালের ৮ মে আবারও গ্রেফতার হয়ে ১৯৬৯ সালের গণঅভ্যুত্থানের মধ্য দিয়ে ২২ ফেব্রুয়ারি মুক্তি পান। এসময় তিনি দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১০২১ দিন কারাগারে ছিলেন।

১৯৭১ সালের ২৬ মার্চের প্রথম প্রহরে স্বাধীনতার ঘোষণা দেওয়ার পরপরই পাকিস্তান সরকার তাকে গ্রেফতার করে। এরপর বঙ্গবন্ধুকে স্থানান্তর করা হয় তৎকালীন পশ্চিম পাকিস্তানের মিয়ানালি কারাগারে একটি সেলে। এই দফায় তিনি কারাভোগ করেন ২৮৮ দিন।

১৯৭২ সালের ১০ জানুয়ারি পাকিস্তানের কারাগার থেকে মুক্তি পেয়ে লন্ডন ও নয়াদিল্লি হয়ে বঙ্গবন্ধু স্বাধীন স্বদেশের বুকে ফিরে আসেন। এরপর বাঙালি জাতিকে গড়ে তোলার দায়িত্ব গ্রহণ করেন।