আষাঢ়-শ্রাবণ ও ভাদ্র মাসব্যাপী ফলজ, বনজ ও ভেষজ বৃক্ষরোপনকারী কৃষকলীগ নেতা ও বিভিন্ন সাংগঠনিক স্তরে সেরা সফলতা অর্জনকারীদের জন্য পুরস্কার ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ কৃষক লীগ।

‘মুজিব শতবর্ষ’ উপলক্ষে এই কর্মসূচি ঘোষণা করেছে ক্ষমতাসীন দলটির সহযোগী সংগঠনটি। এই পুরস্কার চারটি স্তরে দেয়া হবে। প্রথম স্তরে নেতাকর্মীদের ‘ব্যক্তিগত’ হিসেবে পুরস্কার সারাদেশ থেকে ব্যক্তি, দ্বিতীয় স্তরে দশটি সেরা ইউনিয়ন কমিটি, তৃতীয় স্তরে ৫টি উপজেলা কমিটি, চতুর্থ স্তরে ৩টি সেরা জেলা বা মহানগর কমিটিকে পুরস্কার দেয়া হবে।পুরস্কার কী তা এখনই বলতে নারাজ সংগঠনের শীর্ষ নেতারা। এই পুরস্কার হিসেবে বড় চমকই থাকছে বলে জানিয়েছেন কৃষক লীগের সভাপতি সমীর চন্দ চন্দ্র।

কৃষিবিদ সমীর চন্দ বলেন, পুরস্কার পেতে হলে বৃক্ষরোপণের সময় ছবি, নাম ও গাছের সংখ্যা মূল্যায়ন কমিটির নিকট প্রেরণ করতে হবে এবং রোপণের পরবর্তী এক বছর (জুন ২০২১) পর্যন্ত গাছের চারা পরিচর্যা, রক্ষণাবেক্ষণ ও গাছের সংখ্যা বৃদ্ধির হারও জানাতে হবে।

তিনি আরও বলেন, আগামী ২০২১ সালের ১৫ জুন ‘বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি-২০২১’ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথির মাধ্যমে বিজয়ীদের পুরস্কার প্রদানের ব্যবস্থা করা হবে।

গত সোমবার বিকালে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে কৃষক লীগ আয়োজিত বৃক্ষরোপণ কর্মসূচির উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।অনুষ্ঠানে কৃষক লীগ, যারা বেশি গাছ লাগাবে তাদের পুরস্কৃত করার কথা ঘোষণা দেন প্রধানমন্ত্রী। এসময় শেখ হাসিনা পুরস্কার দেয়ার জন্য আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে কৃষক লীগের ফান্ডে অর্থ সহায়তা দেয়ার ঘোষণা দেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি আওয়ামী লীগসহ এর সহ সহযোগী সংগঠনের প্রত্যেক নেতা-কর্মীকে অন্তত তিনটি করে গাছ লাগানোর নির্দেশ দেন। একই সঙ্গে দেশবাসীকেও অন্তত তিনটি করে গাছ লাগানোর আহ্বান জানান তিনি।