mission71

নিজের আগ্রাসনের ইতিহাস স্মরণ করে প্রকৃত অর্থে অনুতপ্ত হতে এবং ‘প্রমোদবালা’-র মতো ইস্যুগুলো সততা ও দায়িত্বশীলতার সাথে সমাধান করতে জাপানের প্রতি আবারও আহ্বান জানিয়েছে চীন।

সোমবার চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র চাও লি চিয়ান বেইজিংয়ে এক নিয়মিত সাংবাদিক সম্মেলনে এ আহ্বান জানান।

তিনি বলেন, জাপানের পাঠ্যপুস্তকে ‘প্রমোদবালা’ ইস্যুসংশ্লিষ্ট ইতিহাস বিকৃত করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে, যা কোনও অবস্থাতেই গ্রহণযোগ্য নয়।
চীনা মুখপাত্র চাও বলেন, প্রতিবেশী রাষ্ট্রগুলোর মেয়েদের ‘প্রমোদবালা’ হিসেবে কাজ করতে বাধ্য করেছিল তৎকালীন আগ্রাসী জাপানি বাহিনী, যা ছিল সাম্রাজ্যবাদী আচরণ ও গুরুতর মানবতাবিরোধী অপরাধ। জাপানি সরকার পাঠ্যপুস্তকে শব্দ অদল-বদল করে ইতিহাস বিকৃতির চেষ্টার মাধ্যমে আবারও প্রমাণ করতে যাচ্ছে যে, দেশটির সরকার প্রতিবেশী দেশগুলোর বিরুদ্ধে আগ্রাসনের জন্য প্রকৃত অর্থে অনুতপ্ত নয়। শান্তির পক্ষের কোনও শক্তি এমনটা করতে পারে না।

চীনা মুখপাত্র চাও জোর দিয়ে বলেন, জাপানের উচিত সঠিকভাবে তার আগ্রাসী ইতিহাস পর্যালোচনা করা, সাম্রাজ্যবাদী চিন্তা-চেতনা থেকে দূরে থাকা, আন্তরিকতার সাথে ‘প্রমোদবালা’ ইস্যুর সমাধান করা। এমনটা করলেই কেবল প্রতিবেশী দেশগুলোর তথা আন্তর্জাতিক সমাজের আস্থা অর্জনে সক্ষম হবে জাপান।

উল্লেখ্য, সম্প্রতি জাপানের শিক্ষা মন্ত্রণালয় ৫টি প্রকাশনালয়ের ‘প্রমোদবালা’ ইস্যুসংশ্লিষ্ট ইতিহাসে পরিবর্তন আনার প্রস্তাব গ্রহণ করেছে। প্রস্তাবনায় ‘প্রমোদবালা’ ইস্যুসংশ্লিষ্ট ইতিহাসের অংশে ‘জোরপূর্বক নিয়োগ’ টার্মটি মুছে দেওয়ার কথা বলা হয়েছে। সূত্র: চায়না অ্যাম্বেসি ওয়েবসাইট