mission71

নদীর দখল-দূষণ রোধে মাদ্রিদের অভিজ্ঞতা কাজে লাগাতে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি) ও স্পেন একযোগে কাজ করবে বলে জানিয়েছেন মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস।

বৃহস্পতিবার (৩০ সেপ্টেম্বর) নগর ভবনের মেয়র কার্যালয়ে বাংলাদেশে নিযুক্ত স্পেনের রাষ্ট্রদূত ফ্রান্সিসকো বেনিতেজ মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপসের সঙ্গে এক সৌজন্য সাক্ষাতে মিলিত হন। সাক্ষাৎকালে ডিএসসিসি মেয়র ব্যারিস্টার শেখ তাপস ও স্পেনের রাষ্ট্রদূত বেনিতেজ বুড়িগঙ্গার দখল-দূষণ রোধে একযোগে কাজ করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

 

সাক্ষাৎকালে স্পেনের রাষ্ট্রদূত ফ্রান্সিসকো বেনিতেজ বলেন, মানজানেরে নদীর তীরে গড়ে ওঠা স্পেনের মাদ্রিদ শহর। সেই নদীও একসময় দখল-দূষণে মৃতপ্রায় ছিল। কিন্তু আমরা সেই নদীর দখল অবমুক্ত ও দূষণ রোধ করে মানজানেরে নদীর পুনর্জীবন ফিরিয়ে আনতে পেরেছি। সেই অভিজ্ঞতা এবং প্রযুক্তি সহায়তার মাধ্যমে স্পেন ঢাকা শহরের বুড়িগঙ্গাসহ অন্যান্য নদীর দখল-দূষণ রোধে পারস্পরিক সহযোগিতা ভিত্তিতে এগিয়ে যেতে পারে।

স্পেনের রাষ্ট্রদূত বেনিতেজের প্রস্তাব সানন্দে গ্রহণ করে ডিএসসিসি মেয়র ব্যারিস্টার শেখ তাপস বলেন, পারস্পরিক সহযোগিতার ভিত্তিতে বুড়িগঙ্গা নদীর দখল-দূষণ রোধ করার এই প্রস্তাব সাধুবাদ যোগ্য। নদীর প্রাকৃতিক পরিবেশ সংরক্ষণের মাধ্যমে নদীর তীর ও অববাহিকায় নান্দনিক ও মনোরম পরিবেশ সৃষ্টি করতে আমরা একযোগে কাজ করতে পারি। ঢাকা ও মাদ্রিদ পারস্পরিক সহযোগিতার ভিত্তিতে ধারাবাহিক উদ্যমে, সমৃদ্ধি অর্জন করতে পারে, উপকৃত হতে পারে।

এ সময় স্পেনের রাষ্ট্রদূত বেনিতেজ মাদ্রিদ সিটি কাউন্সিল পরিচালিত পরিবেশবান্ধব গণপরিবহন ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে গণপরিবহনে শৃঙ্খলা আনয়ন ও পরিবেশের উন্নয়নে মাদ্রিদ সিটি করপোরেশন গৃহীত উদ্যোগ মেয়রকে অবগত করেন এবং এ বিষয়ে দক্ষিণ সিটিকে মাদ্রিদের অভিজ্ঞতা কাজে লাগাতে সহযোগিতার প্রস্তাব দেন। সহযোগিতামূলক প্রস্তাবনার জন্য ধন্যবাদ জানিয়ে মেয়র ব্যারিস্টার শেখ তাপস এ বিষয়ে খতিয়ে দেখে প্রযোজ্য ক্ষেত্রে তা ঢাকা শহরেও বাস্তবায়ন (রেপ্লিকেট) করা যেতে পারে বলে অভিমত ব্যক্ত করেন।

বৈঠকে নবগঠিত ১৮টি ওয়ার্ডের অবকাঠামোগত উন্নয়নে রাষ্ট্রদূত স্পেনের বিনিয়োগ প্রবাহের আগ্রহ ব্যক্ত করেন। জবাবে মেয়র ব্যারিস্টার শেখ তাপস দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের নবগঠিত ১৮ ওয়ার্ডে অবকাঠামোগত উন্নয়ন বিশেষত সড়ক-অন্তর্জল (রোড নেটওয়ার্ক) সৃষ্টিতে প্রয়োজনীয় বিনিয়োগ প্রবাহকে স্বাগত জানান। তবে স্পেনের বিনিয়োগ যেন সহজ শর্তে এবং ঢাকা শহরের বর্তমান বাস্তবতা ও যথার্থতা বিবেচনায় নিয়ে প্রদান করা হয় মেয়র সেই বিষয়ে গুরুত্বারোপ করেন।

 

এছাড়াও মেয়র ব্যারিস্টার শেখ তাপস স্পেনের রাষ্ট্রদূত বেনিতেজকে বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের নানাবিধ উদ্যোগ সম্পর্কে অবগত করে বলেন, আমরা বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় উন্নত প্রযুক্তি ও যন্ত্রপাতির সন্নিবেশ ঘটাতে উদ্যোগ গ্রহণ করেছি। সে জন্য ইতোমধ্যে ৩০টি কম্প্যাক্টর ভেহিকেল ক্রয়ের লক্ষ্যে আন্তর্জাতিক দরপত্র আহ্বান করা হয়েছে। প্রতিযোগিতামূলক এই দরপত্রে স্পেনও অংশগ্রহণ করতে পারে।

বৈঠকে ডিএসসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ফরিদ আহম্মদ, মেয়রের একান্ত সচিব মোহাম্মদ মারুফুর রশিদ খান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।