ইউটিউবের ইতিহাসে সেরা ৫ জনপ্রিয় গান

ইউটিউবের ইতিহাসে সেরা ৫ জনপ্রিয় গান

অবসর কিংবা কাজের ব্যস্ততায় গান প্রশান্ত করে মন। গান যেমন মনকে উদ্বেলিত করতে পারে আবার স্মৃতিকাতরও করে তোলে।

পছন্দের কোনো গান শুনলে অতিসাধারণ একটি দিনও ভালো হয়ে যেতে পারে। ইউটিউবে এমন কিছু গান আছে যা কোটি মানুষের পছন্দের শীর্ষে উঠে এসেছে। ইউটিউবের সেরা ৫ গান নিয়ে আজকের আয়োজন।

‘বেবি শার্ক’

প্রথমেই আসবে যে গানটি তার শিরোনাম- ‘বেবি শার্ক’। গানটির শ্রোতা ক্ষুদে শিশুরা। অসাধরণ এ গানটি শিশুদের মুখে মুখে শোনা যায়। আর এ গানটি ইউটিউবের ইতিহাসে সর্বোচ্চ মানুষের দেখা একটি মিউজিক ভিডিও। এ গানটির উদ্ভব মূলত ক্যাম্প ফায়ার গান হিসেবে।

২০১৬ সালে ‘বেবি শার্ক’ গানটি খুব জনপ্রিয় হয়েছিল। এবং তারই ধারাবাহিকতায় এটি এখন ইউটিউবের সবেচেয়ে বেশি ভিউ পাওয়া একটি গান। ২০২২ সালের জানুয়ারিতে এটি ১০ ​​বিলিয়ন ভিউ ছুঁয়ে যাওয়া প্রথম ইউটিউব ভিডিও হয়ে উঠেছে। পিঙ্কফং নামের দক্ষিণ কোরিয়ার বিনোদন সংস্থা প্রথম ভিডিওসহ গানটির একটি সংস্করণ ইউটিউবে প্রকাশ করে। পরে তা সোশ্যাল মিডিয়া, অনলাইন ভিডিও এবং রেডিও জুড়ে ভাইরাল হয়ে যায়।

আরও পড়ুন:প্রকাশ হলো মোহাম্মদ আসাফউদ্দৌলাহ’র নতুন ১৩ গান

‘দেসপাসিতো’

দ্বিতীয় গানটির শিরোনাম ‘দেসপাসিতো’। গানটি সংগীত শিল্পী লুইস ফন্সি এবং ড্যাডি ইয়াঙ্কির গাওয়া এ বিখ্যাত গানটি ২০১৭ সালে ১২ জানুয়ারি প্রকাশ করা হয়। ইউটিউবে গানটির বর্তমান ভিউ ৭.৮ বিলিয়ন ছাড়িয়েছে। ‘দেসপাসিতো’ কে সর্বকালের সেরা লাতিন সংগীত হিসেবে বলা হয়। মেলোডি ভরপুর গানটি ইউটিউবের ইতিহাসে অন্যতম সেরা গান।

‘শেপ অফ ইউ’

এরপর যে গানটি তার শিরোনাম ‘শেপ অফ ইউ’। গানটি ইংরেজি গায়ক-গীতিকার এড শিরানের গাওয়া তার জীবনের অন্যতম সেরা গান। এটি তার তৃতীয় স্টুডিও অ্যালবাম থেকে ডাবল লিড একক হিসেবে ৬ জানুয়ারি ২০১৭ সালে প্রকাশিত হয়েছিল। অভাবনীয় সাফল্য পাওয়া এ গানটি যুক্তরাজ্যে ২০১৭ এবং দশকের সর্বাধিক বিক্রিত গান ছিল। ইউটিউবে গানটির ভিউ প্রায় ৫.৭ বিলিয়ন।

 

‘সি ইউ এগেইন’

ইউটিউবের সেরা ৫ গানের মধ্যে চতুর্থ অবস্থানে আছে ‘সি ইউ এগেইন’। গানটি আমেরিকান র‌্যাপার এবং গায়ক উইজ খলিফার একটি গান। এটি অভিনেতা পল ওয়াকার যিনি ৩০ নভেম্বর, ২০১৩ সালে একটি যানবাহন দুর্ঘটনায় মারা গিয়েছিলেন তাকে শ্রদ্ধা জানানোর জন্য ২০১৫ ফিল্ম ফিউরিয়াস ৭-এর সাউন্ডট্র্যাকের জন্য তৈরি করা হয়েছিল। গানটি প্রকাশ পায় ১০ মার্চ, ২০১৫ সালে। গানটি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের স্পটিফাই অ্যাপ-এ একদিনে সর্বাধিক স্ট্রিম করা ট্র্যাকের রেকর্ডটি ধরে রেখেছে। ইউটিউবে গানটির ভিউ ৫.৫ বিলিয়ন।

‘আপটাউন ফাঙ্ক’

৫ম স্থানে যে গানটি আছে তার শিরোনাম ‘আপটাউন ফাঙ্ক’। ব্রিটিশ রেকর্ড প্রযোজক মার্ক রনসনের চতুর্থ স্টুডিও অ্যালবাম আপটাউন স্পেশালের একটি গান ‘আপটাউন ফাঙ্ক’। গানটি একটি ফাঙ্ক-পপ, ডিস্কো-পপ সাউন্ড ট্র্যাক। ইউটিউবে গানটি ৫ম সর্বাধিক ভিউ পাওয়া একটি গান। ৪.৫ বিলিয়ন ভিউ পেয়েছে গানটি। গানটি পপ সংস্কৃতিতে একটি বড় প্রভাব ফেলেছিল।

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Latest Articles