mission71

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সুপার টুয়েলভের প্রথম ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে স্বল্প পুঁজি নিয়ে লড়াই করে শেষ পর্যন্ত ম্যাচটি জিততে পারেনি দক্ষিণ আফ্রিকা। প্রোটিয়াদের দেয়া ১১৯ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ৫ উইকেটের জয় পেয়েছে অস্ট্রেলিয়া।

শনিবার আবুধাবিতে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ওভার শেষে ৯ উইকেটে ১১৮ রান করে দক্ষিণ আফ্রিকা। জবাবে মাত্র ২ বল হাতে রেখে ৫ উইকেটের জয় পেয়েছে অজিরা।

১১৯ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে মাত্র ৪ রানে প্রথম উইকেট হারায় অস্ট্রেলিয়া। ১.৫ ওভারে ৫ বলে শূন্য রানে ফেরেন অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ। এরপর দলীয় ২০ রানে ফেরেন আরেক ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নার। এছাড়াও দলীয় ৩৮ রানের মাথায় মিচেল মার্শের উইকেট হারায় অস্ট্রেলিয়া।
৩৮ রানে প্রথম সারির ৩ উইকেট পতনের পর দুশ্চিন্তায় পড়ে যায় অস্ট্রেলিয়া। তবে চতুর্থ উইকেটে গ্লেন ম্যাক্সওয়েলকে সঙ্গে নিয়ে ৪২ রানের জুটি গড়েন স্টিভ স্মিথ। তাদের এ জুটিতেই জয়ের পথে এগিয়ে যায় অজিরা।

কিন্তু এরপর ১ রানের ব্যবধানে স্টিভ স্মিথ ও ম্যাক্সওয়েলের উইকেট হারিয়ে ফের চাপের মধ্যে পড়ে যায় অস্ট্রেলিয়া। শেষ দিকে মার্কু স্টয়নিস ও ম্যাথু ওয়েড দায়িত্বশীল ব্যাটিং করে দলকে জয়ের বন্দরে পৌঁছে দেন। তাদের কল্যাণে ২ বল হাতে রেখে ৫ উইকেটে জয় পায় অস্ট্রেলিয়া।

ওয়েড ১০ বলে ১৫ ও স্টয়নিস ১৬ বলে ২৪ রানে অপরাজিত থাকেন।

এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে প্রথম ৫ বলে ১১ রান সংগ্রহ করেন প্রোটিয়া ওপেনার টেম্বা বাভুমা। তবে দলীয় ১৩ রানের মাথায় গ্লেন ম্যাক্সওয়েলের বলে বোল্ড হয়ে ব্যক্তিগত ১২ রান করে আউট হন বাভুমা। এরপর মাঠে নেমে ২ বলে ৩ রান করে সাজঘরের পথ ধরেন রসি ফন ডার ডুসেন। জশ হ্যাজলউডের বলে ক্যাচ আউট হয়ে মাঠ ত্যাগ করেন ডুসেন।

এরপর হ্যাজলউডের বলে দলীয় ২৩ রানের মাথায় ব্যক্তিগত ৭ রান করে বোল্ড হয়ে মাঠ ত্যাগ করেন কুইন্টন ডি কক।

রান চাপে থেকে এইডেন মারক্রামকে সাথে নিয়ে জুটি গড়ার চেষ্টা করেন হেনরিখ ক্লাসেন। কিন্তু তিনিও বেশিক্ষণ ক্রিজে থাকতে পারলেন না। প্যাট কামিনসের বলে ব্যক্তিগত ১৩ রান করে আউট হন হেনরিখ ক্লাসেন।

ব্যাটসম্যানদের এই আসা-যাওয়ার মিছিলে ব্যতিক্রম ছিলেন এইডেন মার্কওরান। ১৭.১ ওভারে দলীয় ৯৮ রানে ফেরেন তিনি। তার আগে ৩৬ বলে দুই চার আর এক ছক্কায় করেন দলীয় সর্বোচ্চ ৪০ রান। শেষের দিকে বাবাদা ২৩ বলে ১৯ রান করেন। আজকের ম্যাচে এটি দ্বিতীয় সর্বোচ্চ দলীয় স্কোর। মার্কওরান ও রাবাদার কল্যাণে একশ রান পার করতে সক্ষম হয় দক্ষিণ আফ্রিকা।

অজিদের পক্ষে হ্যাজলউড, অ্যাডাম জাম্পা ও মিচেল স্টার্ক দু’টি করে উইকেট নিয়েছেন।